ঈদের ছুটিতেও পর্যটকশূণ্য শাহপরীর দ্বীপ জেটি ঘাট

95

শাহ মুহাম্মদ রুবেল, কক্সবাজার।

পর্যটকশূণ্য শাহপরীর দ্বীপ জেটি ঘাট (ছবি: দৈনিক অধিকার)
দীর্ঘ দেড় কিলোমিটার বিশাল লম্বা জেটি দেখতে অনেক সুন্দর। জেটি থেকে মায়ানমারের পাহাড় ও ঘরবাড়ী দেখা যায়। বোটে করে মায়ানমার থেকে গরু, চাউল ও অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস এনে জেটিতে তুলে। জেটির আশেপাশে নাফ নদীতে অনেক মাছ ধরার বোট ভাসমান অবস্থায় আছে।

জেটিতে দাড়িয়ে সুন্দর প্রকৃতি উপভোগ করতে পর্যটকদের বেশ দারুন লাগে। মনে হয় যেন আকাশ, পাহাড় আর পানি একসাথে ঘনিভূত। জেটির একদম শেষ প্রান্ত থেকে মায়ানমারের রোহিঙ্গাদের গ্রাম দেখা যায়। দুই বছর আগে মায়ানমারের সেনাবাহিনীরা রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতন করছিল যার কারণে সবুজ গ্রামগুলি তাদের নির্যাতন থেকে রেহাই পায়নি।

জেটির মাঝপথ দিয়ে নদী দেখতে খুব ভাল লাগে। শেষ বিকেলের দিকে আকাশের মেঘ আরো সুন্দর দেখা যায়।

মাঝে মধ্যে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশে যাত্রীবাহী কতগুলো বোট দেখা যায়। নদীর মাঝখানে অনেক জেলে জাল ফেলে মাছও ধরে। ঐ এলাকার আয়ের প্রধান উৎস হল মাছ। তারা মাছ ধরে বিভিন্ন জায়গায় বিক্রি করে। ঐ দীপে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস খুব সহজেই মিলে। স্থানীয় মানুষেরা বলেন, অন্যান্য জিনিসের সংকট হলেও মাছের সংকট একদম নেই বললেই চলে ও নদীতে জাল ফেলামাত্র মাছ পাওয়া যায়।

প্রতিবছর ঈদ মৌসুমে পর্যটকের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠলেও এবার পর্যটন এলাকা শাহপরীর দ্বীপে দেখা গেছে ভিন্ন দৃশ্য। শাহপরীর দ্বীপ জেটি ঘাটে নেই পর্যটকদের ভিড়। এতে চরম লোকসানের মুখে পর্যটন ব্যবসায়ীরা।

শুধু শাহপরীর দ্বীপ নয়, দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার প্রভাবে একই অবস্থা টেকনাফের বিভিন্ন পর্যটক স্পটগুলোতে। ফলে ঈদের মৌসুমে চরম লোকসানের মুখে পড়েছে আবাসিক হোটেল-মোটেল এবং পরিবহন খাতের সংশ্লিষ্টরা।

শাহপরীর দ্বীপে প্রকৃতিকে কাছে পেতে শাহপরীর দ্বীপ জেটি ঘাটে ভিড় জমান পর্যটকরা । জেটি ঘাটে ভিড় লেগেই থাকত। কিন্তু এবার সেইসব পরিচিত জায়গা পর্যটকশূণ্য। পর্যটন ব্যবসায়ী আয়ুব বাপ্পি বলছেন, প্রতিবছর তুলনায় এবার পর্যটক কম। এতে লোকসানের মুখে পড়েছে ব্যবসায়ীরা।

যোগাযোগ ব্যবস্থা, রাস্তাঘাটের বেহাল দশা এবং প্রবল বৃষ্টির কারণে পর্যটক সমাগম হয়নি বলে মনে করেন এই খাতে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা।

তবে পর্যটক না থাকলেও নিরাপত্তায় তৎপর রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বছর জুড়ে পর্যটকের ভীড় লেগে থাকে।

প্রাকৃতিক দূর্যোগ কাটিয়ে প্রতিটি স্পটগুলোর পর্যটন ব্যবসা আবারো ঘুরে দাঁড়াবে এমন আশায় বুক বেঁধে আছেন ব্যবসায়ীরা।

মন্তব্য করুনঃ

এই বিভাগের অন্যান্য খবরঃ

টেকনাফের ইয়াবার দুর্নাম ঘুচাতে অধ্যাপক মোঃ আলীকে নৌকায় ভোট দিন- সাবেক এমপি বদি
টেকনাফ উপজেলা নির্বাচন আঞ্চলিক সুবিধায় মৌলানা ফেরদৌস
টেকনাফে ইয়াবা ও স্বর্ণ ব্যবসায়ী মাহমুদুল করিম মাদুসহ ৩ সহোদর অধরা
পৌর যানজট মুক্ত কমিটির নামে চাঁদাবাজি শীর্ষক সংবাদের একাংশের বিবৃতি
অনলাইন সাংবাদিকতা সবচেয়ে স্মার্ট পেশা: জাহিদ ইকবাল
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যয় ছাত্রী জান্নাতের জীবন বাঁচাতে এগিয়ে আসুন!
হতদরিদ্র মানুষ বিভিন্ন এনজিও'র দ্বারস্থ হয়ে ক্ষুদ্র ঋণে জর্জরিত 
৪ বছর পর লেবানন থেকে শূণ্য হাতে ফিরল গৃহ শ্রমিক সাফিয়া
চট্টগ্রাম শিক্ষানবিশ আইনজীবী কল্যাণ পরিষদের কমিটি গঠন
আমিরাতে ইসমাইল সিআইপি সংবর্ধিত
পাহাড়তলী উদয়ন যুব কল্যান পরিষদের উদ্যোগে অসহায় পরিবারের মাঝে গরুর মাংস বিতরণ
টেকনাফে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে সাংসদ শাহিন বদি-সাবেক সাংসদ বদি'র বিনম্র শ্রদ্ধা