সীমান্ত সুরক্ষা ও মাদক চোরাচালান প্রতিরোধ করবে”সেন্টমার্টিনে বিজিবির মহাপরিচালক

62

মিজানুর রহমান মিজান, আলোকিত বিডি বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম বলেছেন, সেন্টমার্টিন ভৌগলিক অবস্থানগত কারণে গুরুত্বপূর্ণ হওয়ায় এখানে বিজিবি সীমান্ত সুরক্ষা ছাড়াও মাদক চোরাচালান প্রতিরোধে দায়িত্ব পালন করবে। সেই সঙ্গে সেন্টমার্টিনে বিজিবিকে আরও সুসংগঠিত করা হবে।

মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সেন্টমার্টিন সফরকালে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

এর আগে দুপুর দেড়টার দিকে সেনাবাহিনীর বিশেষ এক হেলিকপ্টারে করে তিনি সেন্টমার্টিন পৌঁছান। এরপর তিনি মোটরসাইকেলে চড়ে সেন্টমার্টিনের পুনঃস্থাপিত বর্ডার আউট পোস্ট (বিওপি) এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা পরিদর্শন করেন।

উল্লেখ্য, চলতি বছর ৭ এপ্রিল থেকে সেন্টমার্টিনে বিজিবি মোতায়েন করা হয়। এর আগে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত সেন্টমার্টিনে তৎকালীন বিডিআর (বাংলাদেশ রাইফেলস) মোতায়েন ছিল।

সেন্টমার্টিন থেকে বিভিন্ন সময় রোহিঙ্গা আটক করেছে কোস্টগার্ড, পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবি। বিভিন্ন সময় ওই এলাকায় দস্যুতার ঘটনাও ঘটে। এসব নিয়ন্ত্রণে সেন্টমার্টিনে একটি পুলিশ ফাঁড়িও রয়েছে। তবে বর্তমান সরকার মনে করছে, সেন্টমার্টিনের নিরাপত্তায় বিজিবি মোতায়েন দরকার।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের অক্টোবরে সেন্টমার্টিনকে নিজেদের অংশ বলে দাবি করেছিল মিয়ানমার। মিয়ানমার সরকারের জনসংখ্যা বিষয়ক বিভাগের ওয়েবসাইটে তাদের দেশের মানচিত্রে সেন্টমার্টিনকে তাদের ভূখণ্ডের অংশ দেখানো হয়। ৬ অক্টোবর বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় মিয়ানমারের তৎকালীন রাষ্ট্রদূত উ লুইন ও’কে তলব করে এর প্রতিবাদ জানায়। এরপর মিয়ানমার মানচিত্র থেকে সেটি পরিবর্তন করে।

কক্সবাজার সংলগ্ন প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিন সৃষ্টি থেকে বাংলাদেশের ভূখণ্ডের অন্তর্গত। ব্রিটিশ শাসনাধীন ১৯৩৭ সালে যখন বার্মা ও ভারত ভাগ হয় তখন সেন্টমার্টিন ভারতে পড়েছিল। ১৯৪৭ সালে ভারত ভাগের সময় সেন্টমার্টিন পাকিস্তানের অন্তর্ভুক্ত হয়। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর থেকে এটি বাংলাদেশের অন্তর্গত। ১৯৭৪ সালে সেন্টমার্টিনকে বাংলাদেশের ধরে নিয়েই মিয়ানমারের সঙ্গে সমুদ্রসীমা চুক্তি হয়।

১৯৯৭ সালের আগ পর্যন্ত সেন্টমার্টিন দ্বীপে বিজিবি (তৎকালীন বিডিআর) মোতায়েন ছিল। এরপর থেকে সেন্টমার্টিনে বিজিবির কার্যক্রম বন্ধ ছিল। এতদিন ধরে কোস্টগার্ড সদস্যরা ওই সীমানা পাহারা দিয়ে আসছিল। কিন্তু চলতি বছরের ৭ এপ্রিল থেকে সেন্টমার্টিনে বিজিবির একটি বিওপি ক্যাম্প স্থাপনের কার্যক্রম চলছে। তাই সেখানে টহল দিচ্ছে বিজিবি। এটা নিয়মিত টহলের অংশ। প্রতিদিন দ্বীপের বিভিন্ন এলাকায় স্বাভাবিকভাবেই টহল দিচ্ছে বিজিবি।

সেন্টমার্টিন ইউপি চেয়ারম্যান নুর আহমদ বলেন, দ্বীপে বিজিবি মোতায়েনের ফলে নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো জোরদার হয়েছে। এতে স্থানীয় অধিবাসী ও পর্যটকরা নিরপত্তাহীনতা থেকে মুক্ত রয়েছে

মন্তব্য করুনঃ

এই বিভাগের অন্যান্য খবরঃ

ফেনীর মহিপালে ৯হাজার ৩শ ১০পিস ইয়াবাসহ টেকনাফের দুই মাদক কারবারী আটক !!
মায়ের পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে মেয়ের বিয়ে!
রোহিঙ্গা শীর্ষ সন্ত্রাসী নুর মোহাম্মদ বন্দুক যুদ্ধে নিহত
কক্সবাজার পৌরসভাকে শতভাগ মাদক মুক্ত করার ঘোষণায় মাদক ও পতিতা ব্যবসায়ীরা আতঙ্কে
উখিয়ায় পুলিশের অভিযানে ৪ দেশীয় তৈরী অস্ত্র,গোলা-বারুদসহ বিপূল পরিমাণ সামরিক বাহিনীর পোষাক উদ্ধার।
টেকনাফে ‘বন্ধুকযুদ্ধে’রোহিঙ্গাসহ ২ মাদকব্যাবসায়ী নিহত !!
অভিযানে সওজের ১০ কোটি টাকার জায়গা উদ্ধার
টেকনাফে আড়াই হাজার ইয়াবাসহ ১জন আটক করেছে র‍্যাব
বাংলাদেশের সকল থানার ওসি'র মোবাইল নং
পবিত্র কুরআন নিয়ে মহাকাশে পৌঁছেছেন আমিরাতের প্রথম মহাকাশচারী
টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি
ফতুল্লায় কবরস্থানের নামে জমি দখলের পায়তারা, ফুঁসে উঠেছে এলাকাবাসী