Tuesday, December 11, 2018
Home > হোম > বিএনপির সামনে নির্বাচনে অংশ গ্রহন ছাড়া আর বিকল্প কোন পথ খোলা নেই: নাসিম

বিএনপির সামনে নির্বাচনে অংশ গ্রহন ছাড়া আর বিকল্প কোন পথ খোলা নেই: নাসিম

বিএনপিসহ ছোট বড় সকল দল ও জোট নির্বাচনে আসবে এবং প্রস্তুতিও শুরু হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, ১৪ দলের মুখপাত্র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন একটি রাজনৈতিক দলের অস্তিত্ব রক্ষার জন্য নির্বাচনে অংশগ্রহণ এখন সময়ের দাবি। বিএনপিকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেছেন কোন দল যদি এ নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে, তবে সে দলের রাজনৈতিক অস্তিত্ব চিরকালের জন্য বিলীন হয়ে যাবে। বিএনপির সামনে নির্বাচনে অংশগ্রহন ছাড়া আর বিকল্প কোন পথ খোলা নেই। তারা নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষার স্বার্থেই আগামী জাতীয় নির্বাচনে আসবে। এবারের নির্বাচনে অনেক জোট ফ্রন্টসহ ছোটবড় অনেক দল অংশগ্রহণ করবে। এই নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে। আওয়ামী লীগ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচনে অংশগ্রহন করে জনগণৈর সমর্থন নিয়ে জয়লাভ করবে বলেও তিনি মন্তব্য করেছেন।

সোমবার দুপুরে সিরাজগঞ্জ শহরের অনতিদূরে শিয়ালকোলে নির্মাণাধীন শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের নির্মাণ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিএনপিকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের আহবান জানিয়ে আরো বলেছেন- নির্বাচন হবে অবাধ ও সুষ্ঠু।

তিনি বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের বিভিন্নমুখী উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের চিত্র তুলে ধরে বলেন, জনগণ শান্তি চায়, উন্নয়ন চায়। জ্বালাও পোড়াও রাজনীতির কোন কর্মকাণ্ড হতে পারে না। উন্নয়ন এবং জনগণের ভালবাসা নিয়ে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারো নৌকার বিজয় হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, নির্বাচন হবে সংবিধান অনুযায়ী বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধিনে। এর কোন বিকল্প নেই।

এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী কাজিপুরে নির্মানাধীন আমিনা মনসুর ইন্সটিটিউট অব টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের নির্মাণ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন ও সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার বাগবাটিতে সড়ক ও জনপথ বিভাগের একটি সড়কের উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন।

প্রায় এক হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে সিরাজগঞ্জ শহরের উপকণ্ঠে শিয়ালকোলে উত্তরাঞ্চলের সর্ববৃহৎ মেডিকেল কলেজ প্রকল্প ‘শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ ও ৫ শ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল’ নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়েছে। গণপুর্ত অধিদপ্তরের নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করছেন।

প্রকল্পের শতকরা কতভাগ শেষ হয়েছে জানতে চাইলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, প্রায় ৬০ ভাগ শেষ করা হয়েছে এবং অক্টোবর মাসে একাডেমিক ভবন ও হোস্টেলে শিক্ষার্থীদের ক্লাশ শুরু হবে। এ প্রকল্পের কাজ পরিপূর্ণভাবে শেষ হলে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই বৃহৎ প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন বলে তিনি ঘোষণা করেন।

এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে মেডিকেল কলেজ নির্মাণ প্রকল্পের পিডি ডাঃ কৃষ্ণ কুমার পাল, পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী, সিভিল সার্জন ডাঃ কাজী শামীম হোসেন, নির্বাহী প্রকৌশলী আনোয়ারুল আজিম, দলের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট কেএম হোসেন আলী হাসান, আবু ইউসুফ সূর্য্য, পৌর মেয়র সৈয়দ আব্দুর রউফ মুক্তাসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম আরো বলেন, বর্তমান সরকার স্বাস্থ্যখাতসহ সকল ক্ষেত্রে উন্নয়নের যে রোল মডেল সৃষ্টি করেছে, তার প্রেক্ষিতেই জনগণ নৌকা মার্কায় আবার বিপুল ভাবে ভোট দেবে। সিরাজগঞ্জ জেলার উন্নয়নের বিবরন দিয়ে তিনি বলেন, সিরাজগঞ্জকে নদী ভাঙনের হাত থেকে রক্ষায় ক্যাপিটাল ড্রেজিং করা হয়েছে। চার লেনের মহাসড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে। প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন নতুন ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।অনেক নতুন নতুন প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলাসহ অসংখ্য উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে। এই উন্নয়নের কারনেই জনগণ সিরাজগঞ্জ জেলার ছয়টি আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের ভোট দিয়ে বিজয়ী করবে।

বিএনপিসহ ছোট বড় সকল দল ও জোট নির্বাচনে আসবে এবং প্রস্তুতিও শুরু হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, ১৪ দলের মুখপাত্র ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন একটি রাজনৈতিক দলের অস্তিত্ব রক্ষার জন্য নির্বাচনে অংশগ্রহণ এখন সময়ের দাবি। বিএনপিকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেছেন কোন দল যদি এ নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে, তবে সে দলের রাজনৈতিক অস্তিত্ব চিরকালের জন্য বিলীন হয়ে যাবে। বিএনপির সামনে নির্বাচনে অংশগ্রহন ছাড়া আর বিকল্প কোন পথ খোলা নেই। তারা নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষার স্বার্থেই আগামী জাতীয় নির্বাচনে আসবে। এবারের নির্বাচনে অনেক জোট ফ্রন্টসহ ছোটবড় অনেক দল অংশগ্রহণ করবে। এই নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে। আওয়ামী লীগ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচনে অংশগ্রহন করে জনগণৈর সমর্থন নিয়ে জয়লাভ করবে বলেও তিনি মন্তব্য করেছেন।

সোমবার দুপুরে সিরাজগঞ্জ শহরের অনতিদূরে শিয়ালকোলে নির্মাণাধীন শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের নির্মাণ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিএনপিকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের আহবান জানিয়ে আরো বলেছেন- নির্বাচন হবে অবাধ ও সুষ্ঠু।

তিনি বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের বিভিন্নমুখী উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের চিত্র তুলে ধরে বলেন, জনগণ শান্তি চায়, উন্নয়ন চায়। জ্বালাও পোড়াও রাজনীতির কোন কর্মকাণ্ড হতে পারে না। উন্নয়ন এবং জনগণের ভালবাসা নিয়ে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারো নৌকার বিজয় হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, নির্বাচন হবে সংবিধান অনুযায়ী বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অধিনে। এর কোন বিকল্প নেই।

এর আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী কাজিপুরে নির্মানাধীন আমিনা মনসুর ইন্সটিটিউট অব টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের নির্মাণ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন ও সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার বাগবাটিতে সড়ক ও জনপথ বিভাগের একটি সড়কের উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন।

প্রায় এক হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে সিরাজগঞ্জ শহরের উপকণ্ঠে শিয়ালকোলে উত্তরাঞ্চলের সর্ববৃহৎ মেডিকেল কলেজ প্রকল্প ‘শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ ও ৫ শ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল’ নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়েছে। গণপুর্ত অধিদপ্তরের নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করছেন।

প্রকল্পের শতকরা কতভাগ শেষ হয়েছে জানতে চাইলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, প্রায় ৬০ ভাগ শেষ করা হয়েছে এবং অক্টোবর মাসে একাডেমিক ভবন ও হোস্টেলে শিক্ষার্থীদের ক্লাশ শুরু হবে। এ প্রকল্পের কাজ পরিপূর্ণভাবে শেষ হলে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই বৃহৎ প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন বলে তিনি ঘোষণা করেন।

এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে মেডিকেল কলেজ নির্মাণ প্রকল্পের পিডি ডাঃ কৃষ্ণ কুমার পাল, পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী, সিভিল সার্জন ডাঃ কাজী শামীম হোসেন, নির্বাহী প্রকৌশলী আনোয়ারুল আজিম, দলের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট কেএম হোসেন আলী হাসান, আবু ইউসুফ সূর্য্য, পৌর মেয়র সৈয়দ আব্দুর রউফ মুক্তাসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম আরো বলেন, বর্তমান সরকার স্বাস্থ্যখাতসহ সকল ক্ষেত্রে উন্নয়নের যে রোল মডেল সৃষ্টি করেছে, তার প্রেক্ষিতেই জনগণ নৌকা মার্কায় আবার বিপুল ভাবে ভোট দেবে। সিরাজগঞ্জ জেলার উন্নয়নের বিবরন দিয়ে তিনি বলেন, সিরাজগঞ্জকে নদী ভাঙনের হাত থেকে রক্ষায় ক্যাপিটাল ড্রেজিং করা হয়েছে। চার লেনের মহাসড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে। প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন নতুন ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।অনেক নতুন নতুন প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলাসহ অসংখ্য উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে। এই উন্নয়নের কারনেই জনগণ সিরাজগঞ্জ জেলার ছয়টি আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের ভোট দিয়ে বিজয়ী করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *